ঢাকা ০১:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
নড়াইলে ডিবি পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার বেইলি রোডের আগুন নিয়ন্ত্রণে প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করেছেন র‍্যাব-৩ নাটোরের লালপুর তাফসীর মাহফিলে খৃষ্টান যুবকের ইসলাম ধর্ম গ্রহন নারায়ণগঞ্জ  শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বইমেলায় কবিদের উত্তরীয় দিয়ে বরণ কুড়িগ্রামে ৫.১ কেজি গাঁজাসহ মাদক কারবারি গ্রেফতার কৃষক হত্যা মামলায় জয়পুরহাটে ৯ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড কুড়িগ্রামের উলিপুরে রাস্তা পাকা করন কাজের উদ্বোধন গাজীপুরে মাদ্রাসার সুপার ও সভাপতির দূর্ণীতি, অপসারণ দাবিতে মানববন্ধন নড়াইলের শান্তা সেনের মেডেকেল শিক্ষা জীবন সম্পন্ন করতে দারিদ্র বাবা-মায়ের দুঃশিন্তা নড়াইলে শিশু নুসরাত হত্যার রহস্য উদঘাটন ঘাতক সৎ মা গ্রেফতার

মুবিন বিন সোলাইমান, চট্টগ্রাম:
  • আপডেট সময় : ০৭:১২:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মার্চ ২০২৩ ৯৩ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক যখন সময় অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মুবিন বিন সোলাইমান, চট্টগ্রাম:

রাঙ্গুনিয়ার সরফভাটা ইউনিয়ন ক্ষেত্রবাজারের পশ্চিমে ছনঘাটা পুকুরের দক্ষিণ পাশে ছনাগাজী রাস্তা সংলগ্ন পল্লীবিদ্যুতের এগারো হাজার লাইনের খুঁটি ৩০ ডিগ্রি এবং এর পাশেই অপরটি ১০ ডিগ্রি হেলে গেছে। বিদ্যুৎ খুঁটি হেলে পড়লে যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনা।

গত ১৪ই মার্চ (মঙ্গলবার) ২০২৩ইং তারিখে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ক্ষেত্রবাজার হয়ে ছনাগাজী, মীরের খীল সহ পশ্চিম সরফ ভাটার যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম রাস্তাটিতে বিদ্যুৎ খুঁটিস্থ পাশের রাস্তা দিয়ে হাজারো পথচারীদের চলাচল, স্কুল চলাকালীন সময়ে শত শত ছাত্র-ছাত্রী এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করে।

গত কয়েক দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যবসায়ীরা প্রতিবাদমূলক পোস্ট করতে দেখা যায়, ততমধ্যে ক্ষেত্রবাজারের হার্ডওয়ার দোকানের স্বত্বাধিকার মোহাম্মদ রাশেদ লিখেন, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা খুঁটিটি দেখেও না দেখার মতই আছি। যখনই চোখে পড়ে খুটি দেখে ভয়ে আতঙ্কিত হই। খুটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থানে আছে, অতি শীঘ্রই সংস্কার প্রয়োজন। না হলে ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনা।

এ প্রসঙ্গে সরফভাটা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বিদ্যুৎ খুঁটিটি দিন দিন ঝুঁকিপূর্ণ হচ্ছে। অনাকাঙ্ক্ষিত দূর্ঘটনার পূর্বে খুঁটিটি সড়িয়ে শংকামুক্ত করা প্রয়োজন।

ক্ষেত্রবাজার ব্যবসায়ী কমিটির উপদেষ্টা মো: জনি বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যুৎ খুঁটিটি নিয়ে আমরা আতঙ্কিত। বেশ কয়েকবার পল্লী বিদ্যুৎ সরফভাটা অভিযোগ কেন্দ্রে মৌখিকভাবে জানালেও এর কোন সমাধান পাইনি।

এ বিষয়ে পল্লী বিদ্যুৎ সরফভাটা অভিযোগ কেন্দ্রে কর্মরত কর্মকর্তা মো: নাসির মুঠোফোনে বলেন, খুঁটিটি তিন চার বছর ধরে এভাবে আছে। খুঁটিটি টানা দেয়ার জন্য সুবিধা জনক জায়গা নেই। তবে খুঁটিটি আশংকা মুক্ত। খুব তারাতাড়ি এই খুঁটিটি টানা দিয়ে সংস্কার করা হবে। ইতোমধ্যে আমরা বিষয়টি ডিজিএমকে জানিয়েছি।

রাংগুনিয়া পল্লীবিদ্যুতের ডিজিএম জুয়েল দাশ’কে খুঁটি বিষয়ে অবহিত করলে তিনি খুঁটির একটি ছবি দিতে বলেন, পরে যোগাযোগ মাধ্যম হোয়াটস অ্যাপে দিলে তিনি খুঁটির ছবি দেখে বলেন, “এটা কোন সমস্যা হবে না”।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

আপডেট সময় : ০৭:১২:০৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মার্চ ২০২৩

মুবিন বিন সোলাইমান, চট্টগ্রাম:

রাঙ্গুনিয়ার সরফভাটা ইউনিয়ন ক্ষেত্রবাজারের পশ্চিমে ছনঘাটা পুকুরের দক্ষিণ পাশে ছনাগাজী রাস্তা সংলগ্ন পল্লীবিদ্যুতের এগারো হাজার লাইনের খুঁটি ৩০ ডিগ্রি এবং এর পাশেই অপরটি ১০ ডিগ্রি হেলে গেছে। বিদ্যুৎ খুঁটি হেলে পড়লে যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনা।

গত ১৪ই মার্চ (মঙ্গলবার) ২০২৩ইং তারিখে সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ক্ষেত্রবাজার হয়ে ছনাগাজী, মীরের খীল সহ পশ্চিম সরফ ভাটার যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম রাস্তাটিতে বিদ্যুৎ খুঁটিস্থ পাশের রাস্তা দিয়ে হাজারো পথচারীদের চলাচল, স্কুল চলাকালীন সময়ে শত শত ছাত্র-ছাত্রী এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করে।

গত কয়েক দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যবসায়ীরা প্রতিবাদমূলক পোস্ট করতে দেখা যায়, ততমধ্যে ক্ষেত্রবাজারের হার্ডওয়ার দোকানের স্বত্বাধিকার মোহাম্মদ রাশেদ লিখেন, সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা খুঁটিটি দেখেও না দেখার মতই আছি। যখনই চোখে পড়ে খুটি দেখে ভয়ে আতঙ্কিত হই। খুটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থানে আছে, অতি শীঘ্রই সংস্কার প্রয়োজন। না হলে ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনা।

এ প্রসঙ্গে সরফভাটা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, বিদ্যুৎ খুঁটিটি দিন দিন ঝুঁকিপূর্ণ হচ্ছে। অনাকাঙ্ক্ষিত দূর্ঘটনার পূর্বে খুঁটিটি সড়িয়ে শংকামুক্ত করা প্রয়োজন।

ক্ষেত্রবাজার ব্যবসায়ী কমিটির উপদেষ্টা মো: জনি বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যুৎ খুঁটিটি নিয়ে আমরা আতঙ্কিত। বেশ কয়েকবার পল্লী বিদ্যুৎ সরফভাটা অভিযোগ কেন্দ্রে মৌখিকভাবে জানালেও এর কোন সমাধান পাইনি।

এ বিষয়ে পল্লী বিদ্যুৎ সরফভাটা অভিযোগ কেন্দ্রে কর্মরত কর্মকর্তা মো: নাসির মুঠোফোনে বলেন, খুঁটিটি তিন চার বছর ধরে এভাবে আছে। খুঁটিটি টানা দেয়ার জন্য সুবিধা জনক জায়গা নেই। তবে খুঁটিটি আশংকা মুক্ত। খুব তারাতাড়ি এই খুঁটিটি টানা দিয়ে সংস্কার করা হবে। ইতোমধ্যে আমরা বিষয়টি ডিজিএমকে জানিয়েছি।

রাংগুনিয়া পল্লীবিদ্যুতের ডিজিএম জুয়েল দাশ’কে খুঁটি বিষয়ে অবহিত করলে তিনি খুঁটির একটি ছবি দিতে বলেন, পরে যোগাযোগ মাধ্যম হোয়াটস অ্যাপে দিলে তিনি খুঁটির ছবি দেখে বলেন, “এটা কোন সমস্যা হবে না”।