ঢাকা ০৯:৪৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
শিশু অপহরণ মামলার যাবজ্জীবন আসামি ১৩ বছর পর গ্রেফতার যুগান্তরের ২৫ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠান লালপুরে মেধাবীদের শিক্ষাবৃত্তি ও অসহায় নারীদের সেলাই মেশিন বিতরণ মাদকমুক্ত ইন্দুরকানী গড়তে আমাদের করণীয় শীর্ষক’ আলোচনা সভা রিয়াদে Dxnএর আয়োজনে আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস পালন ও সেমিনার অনুষ্ঠিত ওআইসি সদস্য দেশগুলোর তথ্যমন্ত্রীদের সম্মেলনে যোগ দিতে তুরস্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী নড়াইলে হারিয়ে যাওয়া ২০টি মোবাইল আনুষ্ঠানিকভাবে ভুক্তভোগীদের নিকট হস্তান্তর পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্ব অবহেলা পাঁচ শিক্ষককে অব্যাহতি ও দুই শিক্ষর্থীকে বহিস্কার ইসদাইরে অবৈধ ক্যাবল ব্যবসাায়ী বহিস্কৃত যুবলীগ নেতার ফারুক আহমেদ শিমুল ও মনিরুজ্জামান ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, অফিস সীলগালা লালপুরে বিএনপির চার নেতাকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত

স্কুল থেকে ফেরার পথে শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষনের অভিযোগ

মোঃ কবির হোসেন জামালপুর জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১১:৪৬:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ জুন ২০২৩ ৮২ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক যখন সময় অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জামালপুরের বকশীগঞ্জে স্কুল বন্ধ কিনা খোঁজ নিতে গিয়ে বাড়ী ফেরার পথে তৃতীয় শ্রেনীর এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে।
সোমবার (৫ জুন) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়নের টেংরামারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত মোতালেব মিয়া (৫০) উপজেলার যদুরচর গ্রামের মিয়ের উদ্দিনের ছেলে। স্থানীয় ও ভুক্তভোগীর পরিবার সুত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী গত সোমবার সকালে টেংরামারী এলাকায় স্কুল বন্ধ কিনা জানতে তার প্রতিষ্ঠান যদুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান। বিদ্যালয়ে গিয়ে জানতে পারেন সরকারিভাবে সকল বিদ্যালয় ৪ দিনের বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এরপর বিদ্যালয় থেকে বাড়ির দিকে ফেরার পথে ওই শিক্ষার্থীর দুসম্পর্কের নানা (মায়ের ফুফা) স্থানীয় যদুরচর গ্রামের মিয়ের উদ্দিনের ছেলে মোতালেব মিয়া (৫০) তাকে ২০ টাকা দিয়ে প্রলোভন দেখান। এক পর্যায়ে একটি সুপারির বাগানে নিয়ে তার মুখে চেপে ধর্ষণ করেন মোতালেব মিয়া। পরে স্থানীয়রা ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে পৌঁছে দেয়। দুইদিন পর বিষয়টি যানাযানি হলে ওই এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ওই শিক্ষার্থীর মা জানান, বুধবার (৭ জুন) সকাল ৬ টায় ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান লাকপতির কাছে এঘটনার বিচার চাইতে গেলে তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে তাকে জানানো হয়।
কামালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান লাকপতি জানান, বুধবার বিকালে আমার কাছে আসলে আমি এ বিষয়ে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করি। ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন অভিযুক্ত মোতালেব মিয়া এ বিষয়ে তার কোনো বক্তব্য নেওয়া যায়নি। এ ঘটনায় অভিযুক্তের বিচারের দাবি জানিয়েছেন ওই শিক্ষার্থীর পরিবার ও স্থানীয়রা। এ বিষয়ে বকশীগঞ্জ থানার (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) ওসি মো. সোহেল রানা জানান, স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনাটি তিনি প্রাথমিকভাবে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে জানতে পেরেছেন। এঘটনায় কেউ এখনো থানায় অভিযোগ দেয়নি। তবে সেখানে পুলিশ পাঠিয়েছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

স্কুল থেকে ফেরার পথে শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষনের অভিযোগ

আপডেট সময় : ১১:৪৬:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ জুন ২০২৩

জামালপুরের বকশীগঞ্জে স্কুল বন্ধ কিনা খোঁজ নিতে গিয়ে বাড়ী ফেরার পথে তৃতীয় শ্রেনীর এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে।
সোমবার (৫ জুন) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়নের টেংরামারী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত মোতালেব মিয়া (৫০) উপজেলার যদুরচর গ্রামের মিয়ের উদ্দিনের ছেলে। স্থানীয় ও ভুক্তভোগীর পরিবার সুত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী গত সোমবার সকালে টেংরামারী এলাকায় স্কুল বন্ধ কিনা জানতে তার প্রতিষ্ঠান যদুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান। বিদ্যালয়ে গিয়ে জানতে পারেন সরকারিভাবে সকল বিদ্যালয় ৪ দিনের বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এরপর বিদ্যালয় থেকে বাড়ির দিকে ফেরার পথে ওই শিক্ষার্থীর দুসম্পর্কের নানা (মায়ের ফুফা) স্থানীয় যদুরচর গ্রামের মিয়ের উদ্দিনের ছেলে মোতালেব মিয়া (৫০) তাকে ২০ টাকা দিয়ে প্রলোভন দেখান। এক পর্যায়ে একটি সুপারির বাগানে নিয়ে তার মুখে চেপে ধর্ষণ করেন মোতালেব মিয়া। পরে স্থানীয়রা ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে পৌঁছে দেয়। দুইদিন পর বিষয়টি যানাযানি হলে ওই এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ওই শিক্ষার্থীর মা জানান, বুধবার (৭ জুন) সকাল ৬ টায় ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান লাকপতির কাছে এঘটনার বিচার চাইতে গেলে তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে তাকে জানানো হয়।
কামালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান লাকপতি জানান, বুধবার বিকালে আমার কাছে আসলে আমি এ বিষয়ে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করি। ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছেন অভিযুক্ত মোতালেব মিয়া এ বিষয়ে তার কোনো বক্তব্য নেওয়া যায়নি। এ ঘটনায় অভিযুক্তের বিচারের দাবি জানিয়েছেন ওই শিক্ষার্থীর পরিবার ও স্থানীয়রা। এ বিষয়ে বকশীগঞ্জ থানার (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) ওসি মো. সোহেল রানা জানান, স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনাটি তিনি প্রাথমিকভাবে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের মাধ্যমে জানতে পেরেছেন। এঘটনায় কেউ এখনো থানায় অভিযোগ দেয়নি। তবে সেখানে পুলিশ পাঠিয়েছি।