ঢাকা ১২:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
নড়াইলে ডিবি পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার বেইলি রোডের আগুন নিয়ন্ত্রণে প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করেছেন র‍্যাব-৩ নাটোরের লালপুর তাফসীর মাহফিলে খৃষ্টান যুবকের ইসলাম ধর্ম গ্রহন নারায়ণগঞ্জ  শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বইমেলায় কবিদের উত্তরীয় দিয়ে বরণ কুড়িগ্রামে ৫.১ কেজি গাঁজাসহ মাদক কারবারি গ্রেফতার কৃষক হত্যা মামলায় জয়পুরহাটে ৯ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড কুড়িগ্রামের উলিপুরে রাস্তা পাকা করন কাজের উদ্বোধন গাজীপুরে মাদ্রাসার সুপার ও সভাপতির দূর্ণীতি, অপসারণ দাবিতে মানববন্ধন নড়াইলের শান্তা সেনের মেডেকেল শিক্ষা জীবন সম্পন্ন করতে দারিদ্র বাবা-মায়ের দুঃশিন্তা নড়াইলে শিশু নুসরাত হত্যার রহস্য উদঘাটন ঘাতক সৎ মা গ্রেফতার

সাংবাদিক নাদিম হত্যায় শামীম গাজী নামে একজন গ্রেফতার

মোঃ কবির হোসেন জামালপুর জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৫:০৩:২৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ জুলাই ২০২৩ ১১৪ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক যখন সময় অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জামালপুরের বকশীগঞ্জে সাংবাদিক গোলাম রাব্বানী নাদিম হত্যাকান্ডের ঘটনায় শামীম গাজী (৪০)নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে বকশীগঞ্জ পুরাতন গো হাটি এলাকা থেকে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

শামীম গাজী সাধুরপাড়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও আর্চাকান্দি গ্রামের কবির আলী গাজীর ছেলে এবং মামলায় নামীয় আসামী আমর আলী গাজীর ছোট ভাই।

বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সোহেল রানা বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান,
সাংবাদিক নাদিম হত্যাকান্ডের ঘটনায় শামীম গাজীকে গ্রেফতার করা হয়েছে । পুলিশ সুপার নাছির উদ্দীন আহমেদ এর সার্বিক নির্দেশনায় রবিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বকশীগঞ্জ পুরাতন গো হাটি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
জানা যায়,গত ১৪ জুন বুধবার পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে বাড়ি ফেরার পথে পৌর শহরের সরকারি কিয়ামত উল্লাহ কলেজ মোড়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিম। প্রথমে তাকে বকশীগঞ্জ হাসপাতালে ও পরে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার সকালে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে মারা যান সাংবাদিক নাদিম।

এই ঘটনায় নিহত সাংবাদিক নাদিমের স্ত্রী মনিরা বেগম বাদী হয়ে সাধুরপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবুুকে প্রধান আসামী করে নামীয় ২২ জন ও অজ্ঞাত নামা আরো ২০/২৫ জনের বিরুদ্ধে বকশীগঞ্জ থানায় মামলা করেন।

চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকান্ডের ঘটনায় সারাদেশে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামীসহ ১৪ জনকে গ্রেফতার করে। সবাইকে বিভিন্ন মেয়াদে পুলিশ রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করে। ১৪ জনের মধ্যে প্রধান আসামী মাহমুদুল আলম বাবু,মনিরুজ্জামান মনির ও রেজাউল হত্যার দ্বায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী দিয়েছে।
নামীয় ২২ জন আসামীর মধ্যে গ্রেফতার হয়েছে মাত্র ৫ জন আসামী। এখনো ১৭ জন আসামী ধরাছোঁয়ার বাইরে। নাদিম হত্যাকান্ডের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১৫ জন গ্রেফতার হল।

নিহত সাংবাদিক নাদিমের পরিবারের দাবি দ্রুত সকল আসামীকে গ্রেফতার করে আইনের মুখোমুখি দাঁড় করাতে হবে। অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।
সাংবাদিক নাদিম বাংলানিউজ টোয়েন্টিফোর ডট কম এর জেলা প্রতিনিধি ও একাত্তর টিভির বকশীগঞ্জ প্রতিনিধি ছিলেন। সে নিলাক্ষিয়া ইউনিয়নের গোমেরচর গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে। স্ত্রী, ১ মেয়ে ও ২ ছেলেকে নিয়ে তিনি বকশীগঞ্জ পৌর শহরে পশ্চিম পাড়া এলাকায় বসবাস করতেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সাংবাদিক নাদিম হত্যায় শামীম গাজী নামে একজন গ্রেফতার

আপডেট সময় : ০৫:০৩:২৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ জুলাই ২০২৩

জামালপুরের বকশীগঞ্জে সাংবাদিক গোলাম রাব্বানী নাদিম হত্যাকান্ডের ঘটনায় শামীম গাজী (৪০)নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে বকশীগঞ্জ পুরাতন গো হাটি এলাকা থেকে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

শামীম গাজী সাধুরপাড়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও আর্চাকান্দি গ্রামের কবির আলী গাজীর ছেলে এবং মামলায় নামীয় আসামী আমর আলী গাজীর ছোট ভাই।

বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সোহেল রানা বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান,
সাংবাদিক নাদিম হত্যাকান্ডের ঘটনায় শামীম গাজীকে গ্রেফতার করা হয়েছে । পুলিশ সুপার নাছির উদ্দীন আহমেদ এর সার্বিক নির্দেশনায় রবিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বকশীগঞ্জ পুরাতন গো হাটি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
জানা যায়,গত ১৪ জুন বুধবার পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে বাড়ি ফেরার পথে পৌর শহরের সরকারি কিয়ামত উল্লাহ কলেজ মোড়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিম। প্রথমে তাকে বকশীগঞ্জ হাসপাতালে ও পরে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার সকালে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে মারা যান সাংবাদিক নাদিম।

এই ঘটনায় নিহত সাংবাদিক নাদিমের স্ত্রী মনিরা বেগম বাদী হয়ে সাধুরপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবুুকে প্রধান আসামী করে নামীয় ২২ জন ও অজ্ঞাত নামা আরো ২০/২৫ জনের বিরুদ্ধে বকশীগঞ্জ থানায় মামলা করেন।

চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকান্ডের ঘটনায় সারাদেশে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযান চালিয়ে প্রধান আসামীসহ ১৪ জনকে গ্রেফতার করে। সবাইকে বিভিন্ন মেয়াদে পুলিশ রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করে। ১৪ জনের মধ্যে প্রধান আসামী মাহমুদুল আলম বাবু,মনিরুজ্জামান মনির ও রেজাউল হত্যার দ্বায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী দিয়েছে।
নামীয় ২২ জন আসামীর মধ্যে গ্রেফতার হয়েছে মাত্র ৫ জন আসামী। এখনো ১৭ জন আসামী ধরাছোঁয়ার বাইরে। নাদিম হত্যাকান্ডের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১৫ জন গ্রেফতার হল।

নিহত সাংবাদিক নাদিমের পরিবারের দাবি দ্রুত সকল আসামীকে গ্রেফতার করে আইনের মুখোমুখি দাঁড় করাতে হবে। অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।
সাংবাদিক নাদিম বাংলানিউজ টোয়েন্টিফোর ডট কম এর জেলা প্রতিনিধি ও একাত্তর টিভির বকশীগঞ্জ প্রতিনিধি ছিলেন। সে নিলাক্ষিয়া ইউনিয়নের গোমেরচর গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে। স্ত্রী, ১ মেয়ে ও ২ ছেলেকে নিয়ে তিনি বকশীগঞ্জ পৌর শহরে পশ্চিম পাড়া এলাকায় বসবাস করতেন।