ঢাকা ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ঈদুল ফিতরের দিনের ফজিলত, সুন্নত, করণীয় ও বর্জনীয় ইতালির ভেনিসে প্রথম এবং প্রাচীনতম ভেনিস বাংলা প্রেস ক্লাব ইতালির উদ্যোগে ইফতার মাহফিল ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বগুড়া শেরপুর নদী থেকে, এক বস্তা দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার। মিরপুরে তিন শতাধিক পথশিশুদের মাঝে ইফতার বিতরণ করল উইনসাম স্মাইল ফাউন্ডেশন কুমারখালী ব্লাড ডোনেশনের ঈদ উপহার পৌঁছে গেল অসহায়দের বাড়ি বাড়ি রক্তের বন্ধন ঝাউগড়া শাখার নতুন কমিটি পরিচিতি সভার উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল বগুড়া শাহজাহানপুর উপজেলার চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান দুইটি আগ্নেয়  অস্ত্রসহ গ্রেফতার। গাজীপুর কাঁচামাল আড়্ৎদার মালিক গ্রুপ এর আয়োজনে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে যাকাতের বস্ত্র বিতরণ ২০২৪ অনুষ্ঠিত নড়াইলে পুলিশের পৃথক অভিযানে ইয়াবা ও সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার ৪ আমরা সন্ত্রাসী-চাঁদাবাজদের নিয়ে রাজনীতি করিনা -হুইপ সানজিদা খানম

শিশুর মুখে ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ভাষণ: চোখ বেয়ে পানি গড়াল এমপির

মো: আকাশ হোসেন কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১২:৩৪:০৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ মার্চ ২০২৪ ৫৮ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক যখন সময় অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মো: আকাশ হোসেন কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি

শিশুর মুখে ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ভাষণ: চোখ বেয়ে পানি গড়াল এমপির
ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা শেষে প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ চলছিল মিরপুর উপজেলা পরিষদের অডিটোরিয়ামে।

মাইকে ঘোষণা এলো ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের সেই ভাষণ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী সোয়াইব হোসেনকে প্রথম পুরষ্কার গ্রহণ করতে। সাদা পাঞ্জাবি পয়জামাতে কালো মুজিব কোর্ট পরিহিত সোয়াইব এলো পুরষ্কার গ্রহণ করলেন এমপির কাছ থেকে। ঠিক সেসময়ই এমপি কামারুল আরেফীন সেই ভাষন শুনতে মাইক্রোফোন এগিয়ে দিলেন

মাইকে তখন শিশুকণ্ঠে ভেসে এলো বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের কালজয়ী সেই ভাষণ। মুজিব কোট পরা শিশুটি তর্জনী উঁচিয়ে বলে চলেছে- ‘আজ দুঃখ-ভারাক্রান্ত মন নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি। আপনারা সবই জানেন এবং বোঝেন। আমরা আমাদের জীবন দিয়ে চেষ্টা করেছি- আজ ঢাকা, চট্টগ্রাম, রংপুর ও যশোরের রাজপথ আমার ভাইয়ের রক্তে রঞ্জিত হয়েছে…’

ভাষণ চলছে। অডিটোরিয়ামে সুনসান নীরবতা। সবাই মন্ত্রমুগ্ধের মতো শুনছে ভাষণের প্রতিটি কথা। যেন মর্মে মর্মে উপলব্ধি করার চেষ্টা করছে প্রতিটি অক্ষরের আক্ষরিক অর্থ। মাঝে মাঝে ভাষণের টার্ন বুঝে সেদিনের মতো চিৎকারও দিচ্ছিলেন কেউ কেউ। ভাষণের সেই মুহূর্তটি মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ করে নিয়েছেন উপস্থিত প্রায় সবাই।

‘প্রত্যেক গ্রামে, মহল্লায়, ইউনিয়নে, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে সংগ্রাম কমিটি গড়ে তুলুন। হাতে যা আছে তাই নিয়ে প্রস্তুত থাকুন। রক্ত যখন দিয়েছি, রক্ত আরও দেবো। এদেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাল্লাহ। এবারের সংগ্রাম, মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম, স্বাধীনতার সংগ্রাম।’-ভাষণ শেষ করেই তারকা বনে যায় শিশুটি।

মিরপুর উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের আয়োজিত আলোচনা সভার প্রধান অতিথি কুষ্টিয়া-২ (মিরপুর-ভেড়ামারা) আসনের সংসদ সদস্য কামারুল আরেফীন এসময় অশ্রুসিক্ত হয়ে পরেন, চোখ বেয়ে পানি গড়িয়ে পরে তার। পরে তিনি শিশু সোয়াইব হোসেনের ভাষণে খুশি হয়ে তাকে পুরষ্কৃত করেন।

মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জহুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিরপুর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মর্জিনা খাতুন,উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন,মিরপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা হাবিবুল্লাহ সহ উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

বঙ্গবন্ধুর ভাষণ কীভাবে শেখা হলো- জানতে চাইলে সোয়াইব বলেন, ‘আমি শিখেছি বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ শুনে। অনেক চেষ্টার পর আমি এটা মুখস্ত করতে পেরেছি। এটা শিখতে আমার প্রায় দুই মাস সময় লেগেছে।’ ভাষণ শুনতে শুনতে ভাষণটি মুখস্থ করার অনুপ্রেরণা পেয়েছে বলেও জানান তিনি।

৭ মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রথম স্থান অর্জন করেছি। কিন্তু পুরষ্কার নিতে এসে স্বয়ং এমপি মহোদয়সহ অনেকের সামনে ভাষণটি সবার মাঝে তুলে ধরে খুব আনন্দ লেগেছে বলে অভিব‌্যক্তি প্রকাশ করে সোয়াইব।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

শিশুর মুখে ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ভাষণ: চোখ বেয়ে পানি গড়াল এমপির

আপডেট সময় : ১২:৩৪:০৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ মার্চ ২০২৪

মো: আকাশ হোসেন কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি

শিশুর মুখে ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ভাষণ: চোখ বেয়ে পানি গড়াল এমপির
ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা শেষে প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ চলছিল মিরপুর উপজেলা পরিষদের অডিটোরিয়ামে।

মাইকে ঘোষণা এলো ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের সেই ভাষণ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী সোয়াইব হোসেনকে প্রথম পুরষ্কার গ্রহণ করতে। সাদা পাঞ্জাবি পয়জামাতে কালো মুজিব কোর্ট পরিহিত সোয়াইব এলো পুরষ্কার গ্রহণ করলেন এমপির কাছ থেকে। ঠিক সেসময়ই এমপি কামারুল আরেফীন সেই ভাষন শুনতে মাইক্রোফোন এগিয়ে দিলেন

মাইকে তখন শিশুকণ্ঠে ভেসে এলো বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের কালজয়ী সেই ভাষণ। মুজিব কোট পরা শিশুটি তর্জনী উঁচিয়ে বলে চলেছে- ‘আজ দুঃখ-ভারাক্রান্ত মন নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি। আপনারা সবই জানেন এবং বোঝেন। আমরা আমাদের জীবন দিয়ে চেষ্টা করেছি- আজ ঢাকা, চট্টগ্রাম, রংপুর ও যশোরের রাজপথ আমার ভাইয়ের রক্তে রঞ্জিত হয়েছে…’

ভাষণ চলছে। অডিটোরিয়ামে সুনসান নীরবতা। সবাই মন্ত্রমুগ্ধের মতো শুনছে ভাষণের প্রতিটি কথা। যেন মর্মে মর্মে উপলব্ধি করার চেষ্টা করছে প্রতিটি অক্ষরের আক্ষরিক অর্থ। মাঝে মাঝে ভাষণের টার্ন বুঝে সেদিনের মতো চিৎকারও দিচ্ছিলেন কেউ কেউ। ভাষণের সেই মুহূর্তটি মোবাইল ক্যামেরায় ধারণ করে নিয়েছেন উপস্থিত প্রায় সবাই।

‘প্রত্যেক গ্রামে, মহল্লায়, ইউনিয়নে, আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে সংগ্রাম কমিটি গড়ে তুলুন। হাতে যা আছে তাই নিয়ে প্রস্তুত থাকুন। রক্ত যখন দিয়েছি, রক্ত আরও দেবো। এদেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাল্লাহ। এবারের সংগ্রাম, মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম, স্বাধীনতার সংগ্রাম।’-ভাষণ শেষ করেই তারকা বনে যায় শিশুটি।

মিরপুর উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের আয়োজিত আলোচনা সভার প্রধান অতিথি কুষ্টিয়া-২ (মিরপুর-ভেড়ামারা) আসনের সংসদ সদস্য কামারুল আরেফীন এসময় অশ্রুসিক্ত হয়ে পরেন, চোখ বেয়ে পানি গড়িয়ে পরে তার। পরে তিনি শিশু সোয়াইব হোসেনের ভাষণে খুশি হয়ে তাকে পুরষ্কৃত করেন।

মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জহুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিরপুর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মর্জিনা খাতুন,উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন,মিরপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তফা হাবিবুল্লাহ সহ উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

বঙ্গবন্ধুর ভাষণ কীভাবে শেখা হলো- জানতে চাইলে সোয়াইব বলেন, ‘আমি শিখেছি বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ শুনে। অনেক চেষ্টার পর আমি এটা মুখস্ত করতে পেরেছি। এটা শিখতে আমার প্রায় দুই মাস সময় লেগেছে।’ ভাষণ শুনতে শুনতে ভাষণটি মুখস্থ করার অনুপ্রেরণা পেয়েছে বলেও জানান তিনি।

৭ মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রথম স্থান অর্জন করেছি। কিন্তু পুরষ্কার নিতে এসে স্বয়ং এমপি মহোদয়সহ অনেকের সামনে ভাষণটি সবার মাঝে তুলে ধরে খুব আনন্দ লেগেছে বলে অভিব‌্যক্তি প্রকাশ করে সোয়াইব।