ঢাকা ০৬:৪৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
শিশু অপহরণ মামলার যাবজ্জীবন আসামি ১৩ বছর পর গ্রেফতার যুগান্তরের ২৫ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠান লালপুরে মেধাবীদের শিক্ষাবৃত্তি ও অসহায় নারীদের সেলাই মেশিন বিতরণ মাদকমুক্ত ইন্দুরকানী গড়তে আমাদের করণীয় শীর্ষক’ আলোচনা সভা রিয়াদে Dxnএর আয়োজনে আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস পালন ও সেমিনার অনুষ্ঠিত ওআইসি সদস্য দেশগুলোর তথ্যমন্ত্রীদের সম্মেলনে যোগ দিতে তুরস্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী নড়াইলে হারিয়ে যাওয়া ২০টি মোবাইল আনুষ্ঠানিকভাবে ভুক্তভোগীদের নিকট হস্তান্তর পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্ব অবহেলা পাঁচ শিক্ষককে অব্যাহতি ও দুই শিক্ষর্থীকে বহিস্কার ইসদাইরে অবৈধ ক্যাবল ব্যবসাায়ী বহিস্কৃত যুবলীগ নেতার ফারুক আহমেদ শিমুল ও মনিরুজ্জামান ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, অফিস সীলগালা লালপুরে বিএনপির চার নেতাকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত

নওগাঁয় দ্বিতীয় দিনের মতো সকল রুটে বাস চলাচল বন্ধ, চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা

মোঃ এ কে এম নোমান বিশেষ প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : ০৪:৪৭:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০২৩ ৩৫ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক যখন সময় অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মোঃ এ কে এম নোমান বিশেষ প্রতিনিধিঃ  নওগাঁয় সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক ও বাস শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার জেরে দ্বিতীয় দিনের বন্ধ রয়েছে আন্তঃজেলা ও জেলার অভ্যন্তরীণ সব রুটে বাস চলাচল। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা।

বুধবার (১৮ আক্টোবর) সকাল থেকেই চালকরা আগের দিনের মতো গাড়ি বন্ধ রেখে এই কর্মসূচি পালন করছেন। এর আগে মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) সকাল থেকে এই বাস চলাচল বন্ধ রাখেন বাস মালিক ও শ্রমিকরা।

সকাল ১০টায় শহরের বালুডাঙ্গা বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, শ্রমিকদের কর্মবিরতির কারণে টার্মিনাল থেকে কোনো বাস ছেড়ে যাচ্ছে না। টার্মিনালে সারিবদ্ধভাবে রাখা হয়েছে আন্তঃজেলা ও জেলার অভ্যন্তরীণ রুটে চলাচলকারী বিভিন্ন পরিবহনের শতাধিক বাস। জেলা শহর থেকে থেকে ঢাকা-রাজশাহীসহ দূরের গন্তব্যে ও জেলার বিভিন্ন উপজেলায় যাওয়ার জন্য যাত্রীরা টার্মিনালে এসে দাঁড়িয়ে আছেন। সেখানে এসে বাস না পেয়ে কাঙ্খিত গন্তব্যে যেতে ভোগান্তিতে পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের। যাত্রীদের একমাত্র ভরসা বিআরটিসি পরিবহনের বাস ও ইলেক্ট্রিক ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক ও অটোরিকশা সিএনজি। তবে ইজিবাইকে যেতে অন্য সময়ের চেয়ে বশি ভাড়া গুণতে হচ্ছে যাত্রীদের। বাধ্য হয়ে অনেক যাত্রীকে বেশি ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে যেতে দেখা যায়।

বাস টার্মিনালে দাঁড়িয়ে থাকা যাত্রীদের মধ্যে একজন বলেন, অনেকক্ষণ অপেক্ষা করেও কোনো বাস পাইনি। আবার সিএনজির ভাড়া চাচ্ছে বেশি। এখন বাধ্য হয়ে বেশি ভাড়া দিয়েই অফিসে যেতে হবে।

আরেক যাত্রী বলেন, আমাকে জরুরি ভিত্তিতে রাজশাহী যেতে হবে। অনেকক্ষণ ধরে বাস স্টান্ডে দাঁড়িয়ে আছি, কোনো বাস ছেড়ে যাচ্ছে না। এত দূর রাস্তা অটোরিকশা সিএনজি করে যাওয়াও সম্ভব নয়। এখন রাজশাহী যাওয়া নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় পড়ে গেলাম।

জানা যায়, সোমবার (১৬ অক্টোবর) বিকেলে নওগাঁর মান্দায় ফেরিঘাট এলাকায় মহাসড়কে অটোরিকশা চালাতে বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে বাস ও অটোরিকশা শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ওই ঘটনার পর সন্ধ্যায় নওগাঁ শহরের বালুডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ডে অটোরিকশার নিবন্ধন প্রদান, বাস মালিক গ্রুপের লাঠিয়াল বাহিনী রাস্তা থেকে প্রত্যাহার এবং অটোরিকশাচালককে মারধরের প্রতিবাদে অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন ও মালিকরা সড়ক অবরোধ করে বাস চলাচল বন্ধ করে দেন। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয় ওই এলাকায়। একই ঘটনার জেরে গতকাল মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে বাস ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন সাধারণ বাসমালিক ও শ্রমিকরা।

জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আজহারুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের ইউনিয়নের এক সদস্যকে সিএনজি সমিতির লোকজন মারধর করেছে। এই ঘটনার প্রতিবাদে সাধারণ শ্রমিকেরা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছে। এই সমস্যার সমাধানের জন্য আজ বুধবার দুপুরে বালুডাঙ্গা বাস স্টান্ডে শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে শ্রমিক সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়েছে। এই সমাবেশে বাস চলাচলের বিষয়ে একটা সিদ্ধান্ত আসতে পারে।’

নওগাঁ সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আশিক হোসেন বলেন, গত সোমবার আমাদের সাথে যে সমস্যা হয়েছেল সেই সমস্যা রাতেই বসে সমাধান হয়ে গেলে সকাল থেকে বাস-সিএনজি চলাচলের কথা ছিল। কিন্তু গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে তারা বাস চলাচল বন্ধ রাখে। পরে জানতে পারলাম বগুড়া বাস মালিক গ্রুপের সাথে দ্বন্দের কারনে তারা মূলত বাস বন্ধ রেখেছে। কিন্তু আমাদের সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনা তারা সামনে নিয়ে আসছে। আমরা জনগণের ভোগান্তি যেন না হয় এই জন্য সিএনজি চলাচল স্বাভাবিক রেখেছি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান বলেন, নওগাঁয় বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা শ্রমিকদের মধ্যকার দ্বন্দ্ব নিরসন করে যান চলাচল স্বাভাবিক করতে উভয়পক্ষের সঙ্গে আলোচনা চলছে। আশা করছি, খুব তাড়াতাড়ি যান চলাচল স্বাভাবিক হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

নওগাঁয় দ্বিতীয় দিনের মতো সকল রুটে বাস চলাচল বন্ধ, চরম ভোগান্তিতে যাত্রীরা

আপডেট সময় : ০৪:৪৭:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০২৩

মোঃ এ কে এম নোমান বিশেষ প্রতিনিধিঃ  নওগাঁয় সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক ও বাস শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার জেরে দ্বিতীয় দিনের বন্ধ রয়েছে আন্তঃজেলা ও জেলার অভ্যন্তরীণ সব রুটে বাস চলাচল। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা।

বুধবার (১৮ আক্টোবর) সকাল থেকেই চালকরা আগের দিনের মতো গাড়ি বন্ধ রেখে এই কর্মসূচি পালন করছেন। এর আগে মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) সকাল থেকে এই বাস চলাচল বন্ধ রাখেন বাস মালিক ও শ্রমিকরা।

সকাল ১০টায় শহরের বালুডাঙ্গা বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, শ্রমিকদের কর্মবিরতির কারণে টার্মিনাল থেকে কোনো বাস ছেড়ে যাচ্ছে না। টার্মিনালে সারিবদ্ধভাবে রাখা হয়েছে আন্তঃজেলা ও জেলার অভ্যন্তরীণ রুটে চলাচলকারী বিভিন্ন পরিবহনের শতাধিক বাস। জেলা শহর থেকে থেকে ঢাকা-রাজশাহীসহ দূরের গন্তব্যে ও জেলার বিভিন্ন উপজেলায় যাওয়ার জন্য যাত্রীরা টার্মিনালে এসে দাঁড়িয়ে আছেন। সেখানে এসে বাস না পেয়ে কাঙ্খিত গন্তব্যে যেতে ভোগান্তিতে পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের। যাত্রীদের একমাত্র ভরসা বিআরটিসি পরিবহনের বাস ও ইলেক্ট্রিক ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক ও অটোরিকশা সিএনজি। তবে ইজিবাইকে যেতে অন্য সময়ের চেয়ে বশি ভাড়া গুণতে হচ্ছে যাত্রীদের। বাধ্য হয়ে অনেক যাত্রীকে বেশি ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে যেতে দেখা যায়।

বাস টার্মিনালে দাঁড়িয়ে থাকা যাত্রীদের মধ্যে একজন বলেন, অনেকক্ষণ অপেক্ষা করেও কোনো বাস পাইনি। আবার সিএনজির ভাড়া চাচ্ছে বেশি। এখন বাধ্য হয়ে বেশি ভাড়া দিয়েই অফিসে যেতে হবে।

আরেক যাত্রী বলেন, আমাকে জরুরি ভিত্তিতে রাজশাহী যেতে হবে। অনেকক্ষণ ধরে বাস স্টান্ডে দাঁড়িয়ে আছি, কোনো বাস ছেড়ে যাচ্ছে না। এত দূর রাস্তা অটোরিকশা সিএনজি করে যাওয়াও সম্ভব নয়। এখন রাজশাহী যাওয়া নিয়ে খুব দুশ্চিন্তায় পড়ে গেলাম।

জানা যায়, সোমবার (১৬ অক্টোবর) বিকেলে নওগাঁর মান্দায় ফেরিঘাট এলাকায় মহাসড়কে অটোরিকশা চালাতে বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে বাস ও অটোরিকশা শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। ওই ঘটনার পর সন্ধ্যায় নওগাঁ শহরের বালুডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ডে অটোরিকশার নিবন্ধন প্রদান, বাস মালিক গ্রুপের লাঠিয়াল বাহিনী রাস্তা থেকে প্রত্যাহার এবং অটোরিকশাচালককে মারধরের প্রতিবাদে অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন ও মালিকরা সড়ক অবরোধ করে বাস চলাচল বন্ধ করে দেন। এসময় উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয় ওই এলাকায়। একই ঘটনার জেরে গতকাল মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে বাস ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন সাধারণ বাসমালিক ও শ্রমিকরা।

জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আজহারুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের ইউনিয়নের এক সদস্যকে সিএনজি সমিতির লোকজন মারধর করেছে। এই ঘটনার প্রতিবাদে সাধারণ শ্রমিকেরা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছে। এই সমস্যার সমাধানের জন্য আজ বুধবার দুপুরে বালুডাঙ্গা বাস স্টান্ডে শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে শ্রমিক সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়েছে। এই সমাবেশে বাস চলাচলের বিষয়ে একটা সিদ্ধান্ত আসতে পারে।’

নওগাঁ সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আশিক হোসেন বলেন, গত সোমবার আমাদের সাথে যে সমস্যা হয়েছেল সেই সমস্যা রাতেই বসে সমাধান হয়ে গেলে সকাল থেকে বাস-সিএনজি চলাচলের কথা ছিল। কিন্তু গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে তারা বাস চলাচল বন্ধ রাখে। পরে জানতে পারলাম বগুড়া বাস মালিক গ্রুপের সাথে দ্বন্দের কারনে তারা মূলত বাস বন্ধ রেখেছে। কিন্তু আমাদের সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনা তারা সামনে নিয়ে আসছে। আমরা জনগণের ভোগান্তি যেন না হয় এই জন্য সিএনজি চলাচল স্বাভাবিক রেখেছি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান বলেন, নওগাঁয় বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা শ্রমিকদের মধ্যকার দ্বন্দ্ব নিরসন করে যান চলাচল স্বাভাবিক করতে উভয়পক্ষের সঙ্গে আলোচনা চলছে। আশা করছি, খুব তাড়াতাড়ি যান চলাচল স্বাভাবিক হবে।