ঢাকা ০৯:২৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বাঘায় সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত। কুড়িগ্রামে ট্রাক চাপায় প্রাণ গেলো ইস্কুল শিক্ষার্থীর শিশু অপহরণ মামলার যাবজ্জীবন আসামি ১৩ বছর পর গ্রেফতার যুগান্তরের ২৫ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠান লালপুরে মেধাবীদের শিক্ষাবৃত্তি ও অসহায় নারীদের সেলাই মেশিন বিতরণ মাদকমুক্ত ইন্দুরকানী গড়তে আমাদের করণীয় শীর্ষক’ আলোচনা সভা রিয়াদে Dxnএর আয়োজনে আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস পালন ও সেমিনার অনুষ্ঠিত ওআইসি সদস্য দেশগুলোর তথ্যমন্ত্রীদের সম্মেলনে যোগ দিতে তুরস্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী নড়াইলে হারিয়ে যাওয়া ২০টি মোবাইল আনুষ্ঠানিকভাবে ভুক্তভোগীদের নিকট হস্তান্তর পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্ব অবহেলা পাঁচ শিক্ষককে অব্যাহতি ও দুই শিক্ষর্থীকে বহিস্কার

ধানের ক্ষতিকারক বালাই দমনে কৃষকের মাঠে ভ্রাম্যমাণ স্কোয়াড

আবু হাসান আপন নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়ীয়া প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : ১২:৫৪:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ ২০২৩ ১৪৯ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক যখন সময় অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আবু হাসান আপন নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়ীয়া প্রতিনিধিঃ

নবীনগর উপজেলায় এবছর বোরো আবাদ হয়েছে ১৮,০৪০ হেক্টর জমিতে। সঠিক পরিচর্যা পেলে এই মৌসুমের ধান উৎপাদনের মাধ্যমে কৃষকের ৬০ ভাগ দানাদার খাদ্যের যোগান নিশ্চিত হয়। বোরো মৌসুমে ধানের ক্ষতিকারক প্রধান দুইটি বালাই হলো মাজরা এবং ছত্রাকজনিত ব্লাষ্ট রোগ। এই দুটি বালাই যদি সঠিক সময়ে দমন না করা যায় তাহলে গড় ফলন ২০ থেকে ৩০ ভাগ পর্যন্ত কমে যেতে পারে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, নবীনগর ধানের উৎপাদন নিশ্চিত করতে মাজরা এবং ব্লাষ্ট সচেতনতা তৈরি করতে ভ্রাম্যমাণ স্কোয়াড গঠন করেছে। কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার কৃষিবিদ মোঃ রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে কাজ করছে, ৩৪ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা। সরেজমিনে পরিদর্শন করে প্রেসক্রিপশন, রোগ এবং পোকার ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে ওয়াকিবহাল করে কৃষকদের দমন কৌশল নিয়ে কাজ করছে ভ্রাম্যমাণ স্কোয়াড। উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম লিটন সামগ্রিক কার্যক্রম মনিটরিং করছেন।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম লিটন জানান, ব্লাষ্ট এবং মাজরা আক্রমণ সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় যখন ধানের শীষ চিটা হয়ে যায়, ঐ অবস্থায় কোন কিছুই করার থাকে না। এই দুটি বালাই দমন করতে কৃষকদের প্রতিষেধক ব্যবস্থাপনা গ্রহণ করাতে আমরা কাজ করছি। কৃষকদের মাঝে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে। এই ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ধানের ক্ষতিকারক বালাই দমনে কৃষকের মাঠে ভ্রাম্যমাণ স্কোয়াড

আপডেট সময় : ১২:৫৪:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ ২০২৩

আবু হাসান আপন নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়ীয়া প্রতিনিধিঃ

নবীনগর উপজেলায় এবছর বোরো আবাদ হয়েছে ১৮,০৪০ হেক্টর জমিতে। সঠিক পরিচর্যা পেলে এই মৌসুমের ধান উৎপাদনের মাধ্যমে কৃষকের ৬০ ভাগ দানাদার খাদ্যের যোগান নিশ্চিত হয়। বোরো মৌসুমে ধানের ক্ষতিকারক প্রধান দুইটি বালাই হলো মাজরা এবং ছত্রাকজনিত ব্লাষ্ট রোগ। এই দুটি বালাই যদি সঠিক সময়ে দমন না করা যায় তাহলে গড় ফলন ২০ থেকে ৩০ ভাগ পর্যন্ত কমে যেতে পারে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, নবীনগর ধানের উৎপাদন নিশ্চিত করতে মাজরা এবং ব্লাষ্ট সচেতনতা তৈরি করতে ভ্রাম্যমাণ স্কোয়াড গঠন করেছে। কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার কৃষিবিদ মোঃ রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে কাজ করছে, ৩৪ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা। সরেজমিনে পরিদর্শন করে প্রেসক্রিপশন, রোগ এবং পোকার ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে ওয়াকিবহাল করে কৃষকদের দমন কৌশল নিয়ে কাজ করছে ভ্রাম্যমাণ স্কোয়াড। উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম লিটন সামগ্রিক কার্যক্রম মনিটরিং করছেন।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম লিটন জানান, ব্লাষ্ট এবং মাজরা আক্রমণ সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় যখন ধানের শীষ চিটা হয়ে যায়, ঐ অবস্থায় কোন কিছুই করার থাকে না। এই দুটি বালাই দমন করতে কৃষকদের প্রতিষেধক ব্যবস্থাপনা গ্রহণ করাতে আমরা কাজ করছি। কৃষকদের মাঝে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে। এই ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।