ঢাকা ১০:৫৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ঈদুল ফিতরের দিনের ফজিলত, সুন্নত, করণীয় ও বর্জনীয় ইতালির ভেনিসে প্রথম এবং প্রাচীনতম ভেনিস বাংলা প্রেস ক্লাব ইতালির উদ্যোগে ইফতার মাহফিল ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বগুড়া শেরপুর নদী থেকে, এক বস্তা দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার। মিরপুরে তিন শতাধিক পথশিশুদের মাঝে ইফতার বিতরণ করল উইনসাম স্মাইল ফাউন্ডেশন কুমারখালী ব্লাড ডোনেশনের ঈদ উপহার পৌঁছে গেল অসহায়দের বাড়ি বাড়ি রক্তের বন্ধন ঝাউগড়া শাখার নতুন কমিটি পরিচিতি সভার উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল বগুড়া শাহজাহানপুর উপজেলার চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান দুইটি আগ্নেয়  অস্ত্রসহ গ্রেফতার। গাজীপুর কাঁচামাল আড়্ৎদার মালিক গ্রুপ এর আয়োজনে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে যাকাতের বস্ত্র বিতরণ ২০২৪ অনুষ্ঠিত নড়াইলে পুলিশের পৃথক অভিযানে ইয়াবা ও সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার ৪ আমরা সন্ত্রাসী-চাঁদাবাজদের নিয়ে রাজনীতি করিনা -হুইপ সানজিদা খানম

কুমারখালীতে রাসেল ভাইপার সাপের কামড়ে যুবকের মৃত্যু

মো: আকাশ হোসেন কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ১২:১৪:১০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ মার্চ ২০২৪ ৩৭ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক যখন সময় অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মো: আকাশ হোসেন কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে বিষধর রাসেল ভাইপার সাপের কামড়ে তারিকুল ইসলাম (৩০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ মার্চ) সকাল ৬ টার দিকে কুষ্টিয়া সদর হাসাপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। নিহত যুবক উপজেলার শিলাইদহ ইউনিয়নের কল্যাণপুর শেখ পাড়া গ্রামের রশিদ শেখের ছেলে।

হাসপাতাল ও পরিবার সুত্রে জানা গেছে, নিহত তারিকুল ইসলাম কৃষি কাজের পাশাপাশি ছোটখাটো ব্যবসা বাণিজ্যের সাথে জড়িত ছিলেন। গত মঙ্গলবার রাতে তিনি বন্ধুদের সঙ্গে বাড়ির পাশে পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে যান। সেসময় সে বন্ধুদের জানান তার ডান পায়ে সাপ কামড় দিয়েছে। সাথে সাথে টর্চ লাইট জ্বালিয়ে রাসেল ভাইপার সাপ দেখতে পেলেও কাছে কিনারে লাঠিসোটা না থাকায় সাপটিকে মারতে পারে নাই।তাৎক্ষণিক বন্ধুরা আক্রান্ত স্থানে রশি দিয়ে বেঁধে দেন।

পরে স্থানীয় লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যান গেলে ওঝা দিয়ে চিকিৎসার চেষ্টা করেন। ওঝার চিকিৎসা যথেষ্ট নয় ভেবে পরিবারের লোকজন তাকে রাতেই কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন এবং পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সকালে তাঁর মৃত্যু হয়।

নিহতের শ্বাশুড়ি সুন্দরী বেগম বলেন, মাঝে মধ্যেই পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে যেত তারিকুল। মঙ্গলবার রাতে মাছ ধরার সময় সাপের কামড়ে আহত হয় হলে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সকালে মারা যান তার জামাই।

কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার তাপস কুমার সরকার জানান, কামড়ের দাগ ও ধরন দেখে এবং পরীক্ষা নিরীক্ষা ও স্বজনদের মুখে শুনে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বিষাক্ত রাসেল ভাইপার সাপের কামড়ে তরিকুলের মৃত্যু হয়েছে।

নিহতের প্রতিবেশী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন স্কুল শিক্ষক বলেন, বিভিন্ন সময়ে পদ্মা এবং গড়াই নদীর তীরে বিভিন্ন স্থানে রাসেল ভাইপার সাপ ধরা পড়েছে কিছু পরিবেশবাদী সংগঠন ও ব্যক্তি ধরা পড়া বিষাক্ত রাসেল ভাইপার সাপ গুলোকে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে পদ্মা নদীর দুর্গম চরে ছেড়ে দিয়েছেন।

আমার প্রশ্ন পদ্মা নদীর দুর্গম চর বলতে কি বুঝায? আর পদ্মা নদীর দুর্গম চর কোথায়! পদ্মা নদীতে তো আর মরুভূমির মতো বড় চর নেই দুর্গম জায়গাও নেই তবুও অতি উৎসাহী কিছু পরিবেশবাদী অতি আদিখ্যেতা দেখিয়ে এই অঞ্চলটি বিষধর রাসেল ভাইপার সাপের আবাস ভূমি বানিয়ে ফেলেছে।

ইতিমধ্যেই কুষ্টিয়া অঞ্চলে গত দুই বছরের মধ্যে প্রায় ১০ জন রাসেল ভাইপার সাপের কামড়ে মারা গেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

কুমারখালীতে রাসেল ভাইপার সাপের কামড়ে যুবকের মৃত্যু

আপডেট সময় : ১২:১৪:১০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৮ মার্চ ২০২৪

মো: আকাশ হোসেন কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে বিষধর রাসেল ভাইপার সাপের কামড়ে তারিকুল ইসলাম (৩০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ মার্চ) সকাল ৬ টার দিকে কুষ্টিয়া সদর হাসাপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। নিহত যুবক উপজেলার শিলাইদহ ইউনিয়নের কল্যাণপুর শেখ পাড়া গ্রামের রশিদ শেখের ছেলে।

হাসপাতাল ও পরিবার সুত্রে জানা গেছে, নিহত তারিকুল ইসলাম কৃষি কাজের পাশাপাশি ছোটখাটো ব্যবসা বাণিজ্যের সাথে জড়িত ছিলেন। গত মঙ্গলবার রাতে তিনি বন্ধুদের সঙ্গে বাড়ির পাশে পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে যান। সেসময় সে বন্ধুদের জানান তার ডান পায়ে সাপ কামড় দিয়েছে। সাথে সাথে টর্চ লাইট জ্বালিয়ে রাসেল ভাইপার সাপ দেখতে পেলেও কাছে কিনারে লাঠিসোটা না থাকায় সাপটিকে মারতে পারে নাই।তাৎক্ষণিক বন্ধুরা আক্রান্ত স্থানে রশি দিয়ে বেঁধে দেন।

পরে স্থানীয় লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যান গেলে ওঝা দিয়ে চিকিৎসার চেষ্টা করেন। ওঝার চিকিৎসা যথেষ্ট নয় ভেবে পরিবারের লোকজন তাকে রাতেই কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন এবং পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সকালে তাঁর মৃত্যু হয়।

নিহতের শ্বাশুড়ি সুন্দরী বেগম বলেন, মাঝে মধ্যেই পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে যেত তারিকুল। মঙ্গলবার রাতে মাছ ধরার সময় সাপের কামড়ে আহত হয় হলে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সকালে মারা যান তার জামাই।

কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার তাপস কুমার সরকার জানান, কামড়ের দাগ ও ধরন দেখে এবং পরীক্ষা নিরীক্ষা ও স্বজনদের মুখে শুনে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বিষাক্ত রাসেল ভাইপার সাপের কামড়ে তরিকুলের মৃত্যু হয়েছে।

নিহতের প্রতিবেশী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন স্কুল শিক্ষক বলেন, বিভিন্ন সময়ে পদ্মা এবং গড়াই নদীর তীরে বিভিন্ন স্থানে রাসেল ভাইপার সাপ ধরা পড়েছে কিছু পরিবেশবাদী সংগঠন ও ব্যক্তি ধরা পড়া বিষাক্ত রাসেল ভাইপার সাপ গুলোকে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে পদ্মা নদীর দুর্গম চরে ছেড়ে দিয়েছেন।

আমার প্রশ্ন পদ্মা নদীর দুর্গম চর বলতে কি বুঝায? আর পদ্মা নদীর দুর্গম চর কোথায়! পদ্মা নদীতে তো আর মরুভূমির মতো বড় চর নেই দুর্গম জায়গাও নেই তবুও অতি উৎসাহী কিছু পরিবেশবাদী অতি আদিখ্যেতা দেখিয়ে এই অঞ্চলটি বিষধর রাসেল ভাইপার সাপের আবাস ভূমি বানিয়ে ফেলেছে।

ইতিমধ্যেই কুষ্টিয়া অঞ্চলে গত দুই বছরের মধ্যে প্রায় ১০ জন রাসেল ভাইপার সাপের কামড়ে মারা গেছেন।