ঢাকা ১১:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বাঘায় সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত। কুড়িগ্রামে ট্রাক চাপায় প্রাণ গেলো ইস্কুল শিক্ষার্থীর শিশু অপহরণ মামলার যাবজ্জীবন আসামি ১৩ বছর পর গ্রেফতার যুগান্তরের ২৫ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠান লালপুরে মেধাবীদের শিক্ষাবৃত্তি ও অসহায় নারীদের সেলাই মেশিন বিতরণ মাদকমুক্ত ইন্দুরকানী গড়তে আমাদের করণীয় শীর্ষক’ আলোচনা সভা রিয়াদে Dxnএর আয়োজনে আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস পালন ও সেমিনার অনুষ্ঠিত ওআইসি সদস্য দেশগুলোর তথ্যমন্ত্রীদের সম্মেলনে যোগ দিতে তুরস্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী নড়াইলে হারিয়ে যাওয়া ২০টি মোবাইল আনুষ্ঠানিকভাবে ভুক্তভোগীদের নিকট হস্তান্তর পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্ব অবহেলা পাঁচ শিক্ষককে অব্যাহতি ও দুই শিক্ষর্থীকে বহিস্কার

কবরস্থান থেকে কঙ্কাল চুরি, আতঙ্কিত এলাকাবাসী

মোঃ কবির হোসেন জামালপুর জেলা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় : ০২:৩৫:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ ১০৭ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক যখন সময় অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

মোঃ কবির হোসেন জামালপুর জেলা প্রতিনিধিঃ একটি কবরস্থানের কবর খুড়ে একে একে প্রায় সবগুলো কঙ্কাল চুরি করে নিয়ে গেছে চোর চক্র। এখন বাকি আছে আর মাত্র দুইটি কবর। এমন ঘটনা ঘটেছে জামালপুর সদর উপজেলার ঘোড়াধাপ ইউনিয়নের ইদিলপুর গ্রামের একটি কবরস্থানে।
ইদিলপুর গ্রামের কৃষক আব্দুল হাকিমের বাবা আব্দুল আজিজ বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান দেড় বছর আগে। বাবা আব্দুল আজিজকে বাড়ির কাছে ইদিলপুর কবরস্থানে সমাহিত করেছিলেন তিনি। গত এক মাস আগে রাতের আধারে তার বাবার কবর খুড়ে কঙ্কালটি চুরি করে নিয়ে যায় চোর চক্র। সেই থেকে শোকাহত আব্দুল হাকিম।
আব্দুল হাকিম বলেন, ‘আমার বাবার কবর ছিলো আমার শেষ স্মৃতি। এখন সেই কবরের লাশও চুরি হয়ে গেছে। মাঝে মাঝে আসতাম, দোয়া করতাম। এখন সেটাও করতে পারি না। আমার বাবার লাশ যারা চুরি করে নিয়ে গেছে। আমি তাদের বিচার চাই।’
প্রায় শত বছর আগে ৯০ শতাংশ জমির উপর কবরস্থানটি নির্মাণ করে ইদিলপুর গ্রামবাসী। এখানে শায়িত আছেন এই গ্রামসহ আশে পাশের কয়েকটি গ্রামের বাসিন্দাদের স্বজন। গত এক মাসে এই কবরস্থান থেকে রাতের আধারে কবর খুড়ে কঙ্কাল চুরি হয়েছে ১২টি। গত দুই বছরে এমন চুরির সংখ্যা শতাধিক বলছেন স্থানীয়রা। কঙ্কাল চুরির এমন ঘটনায় আতঙ্কিত ও অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে গ্রামবাসী। আরেক বাসিন্দা সেকান্দর আলী বলেন, ‘দুইটা বছর ধরে দেখছি কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটছে। এক মাসে ১২ টা লাশ নিয়েছে চুরি করে। এটার কোনো বিচার কোনো খানে পাইতাছি না। আমরা কাকে বলবো?
এদিকে কবরস্থানটিতে পালাক্রমে পাহারা দিয়েও কোনো সুফল পায়নি স্থানীয়রা। আর আইন সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকায় আইনী প্রক্রিয়ায় যেতে পারছেন না এলাকাবাসী। এমন পরিস্থিতি থেকে উদ্ধার পেতে সামাজিক বন্ধন প্রয়োজন বলে মনে করছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি।
ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন পরষিদের চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম কিবরিয়া বলেন, ‘কবরস্থান থেকে কঙ্কাল চুরি হয়ে যায়। এটা আজকে নতুন না। এটার সাথে বড় একটি সিন্ডিকেট জড়িত রয়েছে। তাই এটা থেকে আমাদের সকলকে অবশ্যই সামাজিক বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া লাগবে।’
এবিষযে নরুন্দি তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মোঃ তোফাজ্জল হোসেন বলেন, এসব বিষয়ে গ্রামবাসী আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ করেনি। তবুও আমরা তথ্য সংগ্রহ করার চেষ্টা করছি। আপরাধীদের আইনের আওতায় নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের চেষ্টা করবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

কবরস্থান থেকে কঙ্কাল চুরি, আতঙ্কিত এলাকাবাসী

আপডেট সময় : ০২:৩৫:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

মোঃ কবির হোসেন জামালপুর জেলা প্রতিনিধিঃ একটি কবরস্থানের কবর খুড়ে একে একে প্রায় সবগুলো কঙ্কাল চুরি করে নিয়ে গেছে চোর চক্র। এখন বাকি আছে আর মাত্র দুইটি কবর। এমন ঘটনা ঘটেছে জামালপুর সদর উপজেলার ঘোড়াধাপ ইউনিয়নের ইদিলপুর গ্রামের একটি কবরস্থানে।
ইদিলপুর গ্রামের কৃষক আব্দুল হাকিমের বাবা আব্দুল আজিজ বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান দেড় বছর আগে। বাবা আব্দুল আজিজকে বাড়ির কাছে ইদিলপুর কবরস্থানে সমাহিত করেছিলেন তিনি। গত এক মাস আগে রাতের আধারে তার বাবার কবর খুড়ে কঙ্কালটি চুরি করে নিয়ে যায় চোর চক্র। সেই থেকে শোকাহত আব্দুল হাকিম।
আব্দুল হাকিম বলেন, ‘আমার বাবার কবর ছিলো আমার শেষ স্মৃতি। এখন সেই কবরের লাশও চুরি হয়ে গেছে। মাঝে মাঝে আসতাম, দোয়া করতাম। এখন সেটাও করতে পারি না। আমার বাবার লাশ যারা চুরি করে নিয়ে গেছে। আমি তাদের বিচার চাই।’
প্রায় শত বছর আগে ৯০ শতাংশ জমির উপর কবরস্থানটি নির্মাণ করে ইদিলপুর গ্রামবাসী। এখানে শায়িত আছেন এই গ্রামসহ আশে পাশের কয়েকটি গ্রামের বাসিন্দাদের স্বজন। গত এক মাসে এই কবরস্থান থেকে রাতের আধারে কবর খুড়ে কঙ্কাল চুরি হয়েছে ১২টি। গত দুই বছরে এমন চুরির সংখ্যা শতাধিক বলছেন স্থানীয়রা। কঙ্কাল চুরির এমন ঘটনায় আতঙ্কিত ও অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে গ্রামবাসী। আরেক বাসিন্দা সেকান্দর আলী বলেন, ‘দুইটা বছর ধরে দেখছি কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটছে। এক মাসে ১২ টা লাশ নিয়েছে চুরি করে। এটার কোনো বিচার কোনো খানে পাইতাছি না। আমরা কাকে বলবো?
এদিকে কবরস্থানটিতে পালাক্রমে পাহারা দিয়েও কোনো সুফল পায়নি স্থানীয়রা। আর আইন সম্পর্কে সঠিক ধারণা না থাকায় আইনী প্রক্রিয়ায় যেতে পারছেন না এলাকাবাসী। এমন পরিস্থিতি থেকে উদ্ধার পেতে সামাজিক বন্ধন প্রয়োজন বলে মনে করছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি।
ঘোড়াধাপ ইউনিয়ন পরষিদের চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম কিবরিয়া বলেন, ‘কবরস্থান থেকে কঙ্কাল চুরি হয়ে যায়। এটা আজকে নতুন না। এটার সাথে বড় একটি সিন্ডিকেট জড়িত রয়েছে। তাই এটা থেকে আমাদের সকলকে অবশ্যই সামাজিক বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া লাগবে।’
এবিষযে নরুন্দি তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মোঃ তোফাজ্জল হোসেন বলেন, এসব বিষয়ে গ্রামবাসী আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ করেনি। তবুও আমরা তথ্য সংগ্রহ করার চেষ্টা করছি। আপরাধীদের আইনের আওতায় নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের চেষ্টা করবো।