ঢাকা ০৯:৪৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
শিশু অপহরণ মামলার যাবজ্জীবন আসামি ১৩ বছর পর গ্রেফতার যুগান্তরের ২৫ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠান লালপুরে মেধাবীদের শিক্ষাবৃত্তি ও অসহায় নারীদের সেলাই মেশিন বিতরণ মাদকমুক্ত ইন্দুরকানী গড়তে আমাদের করণীয় শীর্ষক’ আলোচনা সভা রিয়াদে Dxnএর আয়োজনে আন্তজার্তিক মাতৃভাষা দিবস পালন ও সেমিনার অনুষ্ঠিত ওআইসি সদস্য দেশগুলোর তথ্যমন্ত্রীদের সম্মেলনে যোগ দিতে তুরস্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী নড়াইলে হারিয়ে যাওয়া ২০টি মোবাইল আনুষ্ঠানিকভাবে ভুক্তভোগীদের নিকট হস্তান্তর পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্ব অবহেলা পাঁচ শিক্ষককে অব্যাহতি ও দুই শিক্ষর্থীকে বহিস্কার ইসদাইরে অবৈধ ক্যাবল ব্যবসাায়ী বহিস্কৃত যুবলীগ নেতার ফারুক আহমেদ শিমুল ও মনিরুজ্জামান ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, অফিস সীলগালা লালপুরে বিএনপির চার নেতাকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত

ঈদ উপলক্ষে ভিজিএফ এর ১০ কেজি করে চাল বিতরণে অনিয়ম

হীমেল কুমার মিত্র স্টাফ রিপোর্টার
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৬:৪৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৩ ৫৯ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক যখন সময় অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

দুর্ণীতির চরম শিখরে
কুড়িগ্রামের উলিপুরের পান্ডুল ইউনিয়ন।

আজ (১৯ এপ্রিল) বুধবার ঈদ উপহার উপলক্ষে ভিজিএফ এর চাল বিতরন হচ্ছে পান্ডুল ইউনিয়ন পরিষদে।

পাচ্ছেনা দরিদ্রপরিবার
এখানে শুধু দালালের কারবার।

মাঠ ঘুরে দেখা যায় অন্যান্য ইউনিয়নে হত দারিদ্রের মাঝে চাল বিতরণের অনিয়ম ধরা না পড়লেও পান্ডুলে তা স্পস্ট।

প্রতি একজনের হাতে ৩থেকে ৫, ৭, ১৫, ২০, করে কার্ডের স্লীপ জমা রয়েছে।
জানতে চাইলে দৌঁড়ে পালায় আর বলতে থাকে আমার কাছে মাত্র ২০টি কার্ড।
এলোক পরিষদের কোন সদস্য নয় তবে জানা যায় তারা দালাল চক্র বটে।
চোরের মত দৌঁড় দেখে হতবাক সকলে।

আজকে কিছু ভিডিও তথ্যে জানা যায়,
পান্ডুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আমিনুল ইসলাম এই দালাল চক্র দিয়ে ভিজিএফ এর চাল তুলে নিচ্ছেন।
বিষয়টি জানতে চাইলে
চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন
এবং চাল দেয়া বন্ধ করে দেন।

হতদরিদ্রদের মাঝে সঠিক ভাবে চাল পৌঁছেনা এমন অভিযোগ এলাকায় আনাচে কানাচে।
অভিযোগ কারীগণ নিজেকে প্রকাশ করতে রাজি নন।

দালালের ১০কেজি চালের স্লীপ ধারীরা আরও বলেন,
প্রতিজনকে চাল মেপে দিলে ভাল হয়।
কারণ একজনের হাতে চালের বস্তা দিচ্ছেন তারা আমাদের পাত্তা দিচ্ছেননা।
এমনটি হলে শত শত দরিদ্রপরিবার এই ভিজিএফ এর চাল থেকে বঞ্চিত হবে।
যারা হত দরিদ্র স্লীপ পাওয়ার যোগ্য পরিষদে খুব চোখে পড়তে দেখা যায়।
ট্যাগ অফিসারের অনুপস্থিতে চাল বিতরণ করছেন ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম।

সাংবাদিকের উপস্থিতি দেখে চাল দেয়া বন্ধ করেন।
তথ্য জানতে চাইলে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। বিষয়টি উপজেলা (ইউএনও ) শোভন রাংসা নির্বাহীকর্মকর্তা কে জানালে তিনি বলেন বিষয়টি দেখা হবে আপনি আরো ভাল করে তথ্য সংগ্রহ করে আমাদের জানান।

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসনকে জানালে তিনি বলেন
কোন দুর্ণীতি করার সুযোগ দেয়া হবেনা আমরা এই মুর্হতে খোঁজ নিচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ঈদ উপলক্ষে ভিজিএফ এর ১০ কেজি করে চাল বিতরণে অনিয়ম

আপডেট সময় : ০৮:৩৬:৪৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৩

দুর্ণীতির চরম শিখরে
কুড়িগ্রামের উলিপুরের পান্ডুল ইউনিয়ন।

আজ (১৯ এপ্রিল) বুধবার ঈদ উপহার উপলক্ষে ভিজিএফ এর চাল বিতরন হচ্ছে পান্ডুল ইউনিয়ন পরিষদে।

পাচ্ছেনা দরিদ্রপরিবার
এখানে শুধু দালালের কারবার।

মাঠ ঘুরে দেখা যায় অন্যান্য ইউনিয়নে হত দারিদ্রের মাঝে চাল বিতরণের অনিয়ম ধরা না পড়লেও পান্ডুলে তা স্পস্ট।

প্রতি একজনের হাতে ৩থেকে ৫, ৭, ১৫, ২০, করে কার্ডের স্লীপ জমা রয়েছে।
জানতে চাইলে দৌঁড়ে পালায় আর বলতে থাকে আমার কাছে মাত্র ২০টি কার্ড।
এলোক পরিষদের কোন সদস্য নয় তবে জানা যায় তারা দালাল চক্র বটে।
চোরের মত দৌঁড় দেখে হতবাক সকলে।

আজকে কিছু ভিডিও তথ্যে জানা যায়,
পান্ডুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আমিনুল ইসলাম এই দালাল চক্র দিয়ে ভিজিএফ এর চাল তুলে নিচ্ছেন।
বিষয়টি জানতে চাইলে
চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন
এবং চাল দেয়া বন্ধ করে দেন।

হতদরিদ্রদের মাঝে সঠিক ভাবে চাল পৌঁছেনা এমন অভিযোগ এলাকায় আনাচে কানাচে।
অভিযোগ কারীগণ নিজেকে প্রকাশ করতে রাজি নন।

দালালের ১০কেজি চালের স্লীপ ধারীরা আরও বলেন,
প্রতিজনকে চাল মেপে দিলে ভাল হয়।
কারণ একজনের হাতে চালের বস্তা দিচ্ছেন তারা আমাদের পাত্তা দিচ্ছেননা।
এমনটি হলে শত শত দরিদ্রপরিবার এই ভিজিএফ এর চাল থেকে বঞ্চিত হবে।
যারা হত দরিদ্র স্লীপ পাওয়ার যোগ্য পরিষদে খুব চোখে পড়তে দেখা যায়।
ট্যাগ অফিসারের অনুপস্থিতে চাল বিতরণ করছেন ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম।

সাংবাদিকের উপস্থিতি দেখে চাল দেয়া বন্ধ করেন।
তথ্য জানতে চাইলে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। বিষয়টি উপজেলা (ইউএনও ) শোভন রাংসা নির্বাহীকর্মকর্তা কে জানালে তিনি বলেন বিষয়টি দেখা হবে আপনি আরো ভাল করে তথ্য সংগ্রহ করে আমাদের জানান।

কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসনকে জানালে তিনি বলেন
কোন দুর্ণীতি করার সুযোগ দেয়া হবেনা আমরা এই মুর্হতে খোঁজ নিচ্ছি।